Learn More About Major Courses

Be a Public Health Professional

We are currently offering Bachelor and Masters Degree under Department of Public Health, Faculty of Science & Engineering Technology, FCUB

Public Health Nutrition

Food & Nutrition

 (বিঃ দ্রঃ Public Health Nutrition এবং Food and Nutrition মেজরের মধ্যে প্রয়োগিক ক্ষেত্রে শুধুমাত্র নামের পার্থক্য ছাড়া আর অন্য কোন পার্থক্য না থাকায় এখানে শুধুমাত্র Public Health Nutrition নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে।)
🚩 পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন” কি?
🔷 “পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন” জনস্বাস্থ্যের একটি অন্যতম শাখা একটি নির্দিষ্ট কমিউনিটির জনগণের সামগ্রিক স্বাস্থ্য ও পুষ্টি নিয়ে আলোচনা করে। এর কর্মসূচি অনেক বিস্তৃতঃ পুষ্টি ও স্বাস্থ্যসেবা কর্মসূচির বিকাশ এবং নীতিগত আইন প্রণয়ন ইত্যাদি।
🔷 জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ এমন একজন বিশেষজ্ঞ যিনি এই সেক্টরে পুষ্টি সম্পর্কিত শিক্ষা, গবেষণা কার্যক্রম ও বিভিন্ন প্রকল্প নিয়ে কাজ করেন।
🚩 “পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন” এ পড়ার যোগ্যতাঃ
🔷 BPH in Public Health Nutrition এ ভর্তির যোগ্যতা: HSC অথবা চার বছর মেয়াদি Diploma (MATS/IHT)
🔷 MPH in Public Health Nutrition এ ভর্তির যোগ্যতা: ডিগ্রি পাস অথবা যে কোন বিষয়ে স্নাতক(অনার্স)
🚩 “পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন” পড়ে কি ধরনের ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ পাবো?
🔷 বিসিএস সহ যে কোন প্রথমশ্রেণীর সরকারি চাকরি।
🔷বেসরকারি বিভিন্ন NGO (Both International and Local) পুষ্টি বিষয়ক বিভিন্ন প্রকল্প নিয়ে কাজ করে, যেমনঃ IYCF (Infant and Young Child Feeding), ECD (Early Childhood Programming in the Field) ইত্যাদি। অভিজ্ঞতার সাথে পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন এ BPH অথবা MPH থাকলে এই সব প্রকল্পে উপরের দিকের পোস্ট এ চাকরির সিলেকশন এ অনেক প্রিভিলেজ পাওয়া যায়।
🔷 কক্সবাজার উখিয়াতে বিভিন্ন NGO (Both International and Local) এর Human Crisis Project গুলিতে পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন এ গ্রাজুয়েটদের বেশ চাহিদা আছে।
🔷 Nestle, MARKS, New Zealand Dairy ইত্যাদি কোম্পানি গুলোর Production, Marketing, R&D এই তিন ডিপার্টমেন্টে পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন এ গ্রাজুয়েটদের অনেক ভালো স্যালারিতে নিয়োগ দেওয়া হয়।
🔷 এই জব গুলো ছাড়াও আপনি যদি অন্য কোন জব করেন তবে পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন এ গ্রাজুয়েশন করে হসপিটালে অথবা ব্যাক্তিগত চেম্বারে ডায়েটিশিয়ান হিসেবে আইনতভাবে প্র্যাকটিস করতে পারবেন।
📌 BPH অথবা MPH in Public Health Nutrition এর যে কোন একটি সম্পন্ন করে BIRDEM এবং Bangladesh Food and Nutrition Association – BAFNA থেকে সার্টিফিকেট কোর্স করার সুযোগ আছে।
🌠 মানণীয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে তৎকালীন দেশের সরকারি ও বেসরকারি মিলিয়ে ৫০৬০টি হাসপাতালে নুন্যতম একজন নিউট্রিশনিস্ট নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরুর জন্য পদক্ষেপ হাতে নেয় যার খসড়াটি ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে মানণীয় প্রধানমন্ত্রী বাতিল করে দেন এবং প্রতিটি হাসপাতালের প্রত্যেক বিভাগে নুন্যতম একজন নিউট্রিশনিস্ট নিয়োগের আদেশ দিয়ে পূনরায় খসড়া করতে নির্দেশ দেন, যা প্রক্রিয়াধীন। এই প্রজ্ঞাপন জারি হইলে বিভিন্ন ধাপে ২০হাজারের অধিক নিউট্রিশন গ্রাজুয়েট এর সরকারি চাকরির সুযোগ হবে। কারো নিচের যে কোন একটি ডিগ্রি থাকলেই সে এই চাকরির জন্য পরীক্ষা দিতে পারবেঃ
✅BPH অথবা MPH in Public Health Nutrition
✅BPH অথবা MPH in Food & Nutrition
✅BSc অথবা MSc in Food & Nutrition
✅BSc অথবা MSc in Nutrition & Food Technology
🚩উচ্চশিক্ষার সুযোগঃ
প্রয়োজনীয় Criteria যদি Fillup করতে পারে তবে একজন “পাবলিক হেলথ নিউট্রিশন” এ গ্রাজুয়েটরা অন্যান্য পাবলিক হেলথ গ্রাজুয়েটদের মতই দেশে ও বিদেশে উচ্চশিক্ষা গ্রহনের সুযোগ নিতে পারবে।

Community Medicine

🤔 কমিউনিটি মেডিসিন কি ?
🧠 কমিউনিটি মেডিসিন হল ওষুধ বিজ্ঞানের একটি নতুন শাখা। এটি Preventive and Social Medicine (PSM), and Community Health-এর সমার্থক হিসাবে বিবেচিত। এই সব বিভাগের একই কাজ, আর তা হল- রোগ প্রতিরোধ এবং স্বাস্থ্যের উন্নয়ন। সংক্ষেপে, কমিউনিটি মেডিসিন comprehensive health services সরবরাহ করে যেখানে প্রতিরোধমূলক, উন্নয়নমূলক, নিরাময়কারী এবং পুনর্বাসন সংক্রান্ত পরিষেবাগুলি থাকে৷
🧠 তৃণমূল থেকে আন্তর্জাতিক স্তরে কমিউনিটি মেডিসিনের গুরুত্ব খুব ভালভাবে স্বীকৃত। শুধুমাত্র ব্যক্তিকেন্দ্রীকই নয়, বরং সমস্ত কমিউনিটির স্বাস্থ্য সমস্যাগুলি অন্তর্ভুক্ত করতেই চিকিৎসা ক্ষেত্রটি প্রসারিত হয়েছে গত কয়েক দশক ধরে। আমরা যদি সবার জন্য স্বাস্থ্য অর্জন করতে চাই, পরবর্তী সহস্রাব্দের সময় কমিউনিটি মেডিসিন অবশ্যই মূল কারণ হয়ে উঠবে।
🤔 কমিউনিটি মেডিসিন- এ পড়ার যোগ্যতা কি ?
🧠 BPH in Community Medicine এ ভর্তির যোগ্যতাঃ HSC অথবা ডিপ্লোমা (MATS/IHT) কমপ্লিট।
🧠 MPH in Community Medicine এ ভর্তির যোগ্যতাঃ ডিগ্রি পাশ অথবা BPH in Community Medicine সহ যে কোন বিষয়ে স্নাতক (সম্মান) ।
🤔 কমিউনিটি মেডিসিন-এ পড়ে কি কি সুযোগ সুবিধা পাবো ?
🧠 কমিউনিটি মেডিসিন-এ পড়ার সুযোগ সুবিধা নিম্নরূপঃ
১. সিভিল সোসাইটি অর্গানাইজেশনগুলিতে (সিএসও) যোগদান এবং পরামর্শদাতা, গবেষণা কর্মকর্তা, প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা হিসাবে কাজ করার সুযোগ।
২. বিভিন্ন UN এজেন্সি যেমন – WHO, UNICEF, UNDP, UNHCR তে কাজ করার সুযোগ।
৩. স্বাস্থ্য ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠানে Epidemiologist হিসাবে কাজ করার সুযোগ।
৪. BIRDEM, DAB (Diabetic Association of Bangladesh) এবং কেন্দ্রীয় পর্যায়ের সরকারী বিভাগ ও মন্ত্রণালয়গুলিতে কাজের সুযোগ।
৫. BRAC সহ বিভিন্ন NGO (Both International and Local) তে কাজ করার অবারিত সুযোগ।
৬. বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ফ্যাকাল্টি হিসাবে যোগদানের হাতছানি।
🤔 এ বিষয়ের উচ্চশিক্ষার সুযোগ কেমন?
🧠 উচ্চশিক্ষার সুযোগঃ
প্রয়োজনীয় Criteria যদি Fillup করতে পারে তবে কমিউনিটি মেডিসিন-এর একজন গ্রাজুয়েট অন্যান্য পাবলিক হেলথ গ্রাজুয়েটদের মতই বাংলাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়সহ বাইরের বিশ্ববিদ্যালয়েও উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সুযোগ করে নিতে পারবে।
🤔 কমিউনিটি মেডিসিন-এর প্রয়োজনীয় বইয়ের তালিকাঃ
🧠 আপনি কমিউনিটি মেডিসিন-এর একজন ছাত্র হিসেবে নিম্নের বই গুলো ফলো করতে পারেন:
১. Park’s Textbook of Preventive and Social Medicine by K Park
২. Textbook of Preventive and Social Medicine by Piyush Gupta.
৩. Community Medicine with Recent Advances by AH Suryakantha.
৪. A Review of Preventive and Social Medicine by Chandrakant Lahariya

Hospital Management

📌বাকি সব কিছুর মত সময়ের সাথে বদলাচ্ছে হাসপাতালগুলোও। আর বদলে যাওয়া এই জমানায় অন্য যে কোনও পরিষেবার মতো হাসপাতালও চাইছে পেশাদার পরিচালক। যার দৌলতে জন্ম নিয়েছে শুধু ‘হাসপাতাল পেশাদার’ হওয়ার জন্যই পড়াশোনার পথ। সেখানে পড়ুয়ারা প্রশিক্ষিত হচ্ছে যে কোনও ধরনের স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্রের পরিচালন, প্রচার, বিপণন ইত্যাদির খুঁটিনাটি সম্পর্কে।
📌চাহিদা বাড়ছে ক্রমশঃ
কয়েক বছর আগেও অভিজ্ঞ চিকিৎসকেরা একই সঙ্গে চিকিৎসা ও হাসপাতাল পরিচালনার দায়িত্ব সামলে দিতেন। কিন্তু গত কয়েক বছরে দেশ জুড়ে স্বাস্থ্য পরিষেবা ক্ষেত্রে আরও তীব্র হয়ে উঠেছে প্রতিযোগিতা। যে কারণে প্রয়োজন পড়ছে টক্কর দেওয়ার মানসিকতা সম্পন্ন পেশাদার ‘হসপিটাল ম্যানেজার’দের।
📌কাজের সুযোগ একাধিকঃ
শুধু হাসপাতাল কিংবা নার্সিংহোমই নয়, রোগনির্ণয় কেন্দ্র, স্পেশ্যালিটি ক্লিনিকের মতো স্বাস্থ্য পরিষেবার অন্যান্য কেন্দ্রেও এই পেশাদারদের কাজের সুযোগ ছড়িয়ে যাচ্ছে।
📌এখন চিকিৎসার সংজ্ঞাটাই পুরো বদলে গিয়েছে। বড় মাল্টি-স্পেশ্যালিটি হাসপাতাগুলিতে পরিচালন ব্যবস্থার মান তো ‘সর্বোচ্চ’ স্তরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছেই। পাশাপাশি দেখা হচ্ছে ছোটখাটো স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্রেও যেন আধুনিক প্রযুক্তির ছাপ থাকে। পরিষেবা প্রদানের ক্ষেত্রে যেন থাকে পেশাদারিত্বের ছোঁয়া। ব্যবসা বাড়াতে হাসপাতালকে সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরার গুরুত্ব এখন অনেক বেড়েছে। ফলে জনসংযোগ, প্রচার, বিপণনের কৌশল নিয়ে মাথা ঘামানোর জন্য নেওয়া হচ্ছে আলাদা আলাদা কর্মী, জানাচ্ছেন কেরিয়ার বিশেষজ্ঞেরা। এ ছাড়া, স্বাস্থ্য পরিষেবা কেন্দ্রে আসা রোগী বা তাঁর বাড়ির লোককে প্রয়োজন অনুযায়ী সাহায্য করা থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিভাগ, কর্মী বা সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের প্রযুক্তি সংক্রান্ত বিষয়ের তত্ত্বাবধানের জন্যও ডাক পড়ে প্রশিক্ষিতদের। অর্থাৎ সার্বিক ভাবে বলা যায় শুধু চিকিৎসা নয়, চিকিৎসার পূর্ববর্তী ও পরবর্তী সমস্ত ধাপগুলিকে সুস্থ ভাবে পরিচালনা করাই হাসপাতাল পরিচালকের কাজের মধ্যে পড়ে।
📌 “HOSPITAL MANAGEMENT” এ পড়ার যোগ্যতাঃ
🔷 BPH in Hospital Management এ ভর্তির যোগ্যতা: HSC অথবা Diploma (MATS/IHT)
🔷 MPH in Hospital Management এ ভর্তির যোগ্যতা: ডিগ্রি পাস অথবা যে কোন বিষয়ে স্নাতক(অনার্স)

Health Education & Health Promotion

কমিউনিটি হেলথ/ পপুলেশন হেলথ বা পাবলিক হেলথ সাইন্সের এর একটি গুরুত্বপুর্ণ শাখা হেলথ এডুকেশন বা হেলথ লিটারিসি । এপিডেমিওলজিস্টদের তৈরি করা হেলথ রিস্ক ফ্যাক্টর, প্রটেকটিভ ফ্যাক্টর, ডিজিজ কন্ট্রোল ইনফরমেশন কমিউনিটি পর্যায়ে এমন কি ইনডিভিযুয়াল পর্যায়ে পৌছে দেয়া এই সাবজেক্ট এর মুল উদ্দেশ্য। কমিউনিটি পর্যায়ে ডিজিস প্রিভেনশন এবং ট্রিটমেন্ট উভয় ক্ষেত্রেই এর ব্যবহার পরিলক্ষিত হয়। দেশে এবং দেশের বাইরে বিভিন্ন নামে এই কোর্সটি পড়ানো হয় ।
যেকোন ক্রনিক ও ইনফেকশাস রোগের বিস্তার কমাতে হেলথ এডুকেশন অত্যন্ত জরুরী। যেমন কোভিড-১৯ প্রতিরোধ এর জন্য আমরা ঘরে অবস্থান করছি, মাস্ক ব্যবহার করছি, বার বার হাত স্যনিটাইজ করছি, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখছি । আবার ডায়বেটিস রোগীরা দিনে কমপক্ষে ৩০ মিনিট হাটা চলা করছে, মিষ্টি কম খাচ্ছে, আবার কোন ঔষধ কখন খেতে হবে খাওয়ার আগে নাকি পরে, কি ধরনের শারিরিক সমস্যা দেখা দিলে কি ধরনের ডাক্তার বা কোন পর্যায়ের হসপিটালে যেতে হবে এই ইনফরমেশন গুলো ই হেলথ এডুকেশন।
📌এই সাবজেক্ট রিলেটেড জব পেলে যে ধরনের জব ডিসক্রিপশন হতে পারেঃ
১. কমিউনিটিতে কোন রোগ সম্মন্ধে নলেজ এটিটিউটি এন্ড প্রাকটিস এসেসমেন্ট করা এবং ইন্টারভেনশন প্রদান করা অর্থাৎ কোন ঘাটতি থাকলে তা পুরন করা বা উন্নতি করা।
২. স্পেসিফিক কোন ইথনিসিটিতে বা এরিয়াতে স্বাস্থ্য উন্নয়নের কাজ করা।
৩. স্পেসিফিক কোন ইথনিসিটিতে বা এরিয়ার জনগনের হেলথ সেকিং বিহাবিয়ার পরিবর্তন করা বা উন্নয়ন করা।
৪. বিভিন্ন কমিউটিতে স্কুল হেলথ এবং মোবাইল হেলথ পরিচালনা করা।
৫. বিভিন্ন কমিউনিটিতে স্বাস্থ্য শিক্ষা প্রদান করা।
৬. এনজিওর প্রজেক্ট গুলোতে মনিটরিং, ইভোলিউশন এর কাজ করা ইত্যাদি।
এছাড়া সরকারিভাবে প্রত্যেকে উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে হেলথে এডুকেশন অফিসার (১১ গ্রেড) এবং সিনিয়র হেলথ এডুকেশন অফিসার (৮ গ্রেডে) হিসাবে দুটি পোষ্ট বিদ্যমান রয়েছে। এই পদে জনবলের ভীষন সংকট বাংলাদেশে ।
📌বাইরের দেশগুলোতে এই বিষয়ে উচ্চ শিক্ষা এবং কর্মের প্রচুর সুযোগ রয়েছে। আমার জানা মতে অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ডে এই সাবজেক্ট অনেক ডিমান্ড রয়েছে এবং জনবলের অভাব রয়েছে। স্বাস্থ্য বিষয়ে কাজ করে এমন প্রায় প্রতিটি এনজিও তে হেলথ এডুকেটর এর পদ রয়েছে।
সর্বোপরি কথা হলো, আপনি যে বিষয়ে পড়েন না কেনো আপনাকে ঐ বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করতে তার সাথে সাথে আপনার স্কিল ডেভেলপ করতে হবে তা হলেই আপনার কর্মক্ষেত্রের কোন অভাব হবে না ইনশাল্লাহ।